করোনাজাতীয়

দ. আফ্রিকা থেকে ফিরলে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ‘ওমিক্রন’ সংক্রমিত আফ্রিকা মহাদেশ থেকে কেউ বাংলাদেশে এলে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে করোনাভাইরাসের আফ্রিকান ভ্যারিয়েন্ট ‘ওমিক্রন’ মোকাবিলার প্রস্তুতি সংক্রান্ত আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়। সভা শেষে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক সাংবাদিকদের এ কথা জানান।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ওমিক্রন যুক্তরাজ্যসহ ইউরোপের অনেকগুলো দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এ বিষয়ে আমরা আলোচনা করেছি। বাংলাদেশে কীভাবে ওমিক্রন নিয়ন্ত্রণ করা যায়। প্রথমত হলো যাতে না আসে, ঠেকানো যায়, সেই চেষ্টা করা। যদি আসে, কীভাবে ভাইরাস নিয়ন্ত্রণ করবো, আক্রান্তদের চিকিৎসার বিষয়ে কাজ করবো, বিদেশ থেকে যারা আসবে তাদের কীভাবে গ্রহণ করবো, কোয়ারেন্টাইন করবো সে বিষয়ে আলোচনা করেছি।

ওমিক্রন ডেল্টা থেকেও বেশি সংক্রমণের ক্ষমতা রাখে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, আক্রান্ত হলে রোগীর মৃদু লক্ষণ থাকে। রোগী দুর্বল হয়, হালকা কাশি থাকে, জ্বর হয় না। যে কারণে বোঝা মুশকিল।

‘আমাদের হাসপাতালগুলো প্রস্তুত আছে। বেডও ১৮ হাজার আছে, ১২০টি হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন লাইনও আছে। লিকুইড অক্সিজেনের পরিমাণও অনেক, প্রায় ৩০০ টনের কাছাকাছি বাংলাদেশ তৈরি করছে।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বিদেশ থেকে বিশেষ করে আফ্রিকা মহাদেশ বা দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে যখন কেউ আসবে, তাদের ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে বাধ্যতামূলক। সেটা হোম কোয়ারেন্টাইন নয়, প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন। সেই ব্যবস্থা থাকতে হবে, সেই কোয়ারেন্টাইন ম্যানেজমেন্ট খুব শক্ত হতে হবে। আমরা চাই সশস্ত্র বাহিনীর ব্যক্তিরা সেই কোয়ারেন্টাইন ম্যানেজ করবেন।

তিনি আরও বলেন, অন্য দেশগুলো যেখানে এখনো ওমিক্রন ইনফেক্টেড হয়নি সেখান থেকে টেস্টের সার্টিফিকেট নিয়ে আসতে পারবে। কিন্তু অন্য কোনো দেশেও যদি এর সংক্রমণ বৃদ্ধি পায়, সেই দেশের লোক এলে আমরা ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনের কথা ভাবছি। এটাই আমরা করবো।

জাহিদ মালেক বলেন, ‘কোয়ারেন্টাইনের বিষয়ে বলা হয়েছে, যাকে হোটেল কোয়ারেন্টাইন করতে দেওয়া হয়েছে, তারা অনেক সময় হোটেলে থাকেনি। ফাঁকি দিয়ে বের হয়েছে, বাড়িতে পর্যন্ত চলে গেছে। আমরা এ বিষয়ে শক্ত হওয়ার জন্য বলেছি।’

দিয়াবাড়ীতে আগের করা কোয়ারেন্টাইনের স্থানটি থাকলে সেখানেও প্রায় ১০০ হোটেলে কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিত করা হবে বলে জানিযেছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected