জাতীয়বিশ্ব

বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস আজ

আজ সোমবার (৩ মে) বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস। প্রতিবছর বিশ্বজুড়ে দিবসটি পালিত হয়ে থাকে। এবছর দিবসটির স্লোগান হচ্ছে ‘তথ্য জনগণের পণ্য’।

৩ মে বিশ্বব্যাপী সংবাদপত্রের স্বাধীনতা মূল্যায়ন করতে, গণমাধ্যমের স্বাধীনতার ওপর হস্তক্ষেপ থেকে সুরক্ষা পেতে এবং সাংবাদিকতা পেশার দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে প্রাণ হারানো সাংবাদিকদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস পালন করবে সংস্থাটি।

১৯৯১ সালে ইউনেস্কোর ২৬তম সাধারণ অধিবেশনের সুপারিশ মোতাবেক ১৯৯৩ সালে জাতিসংঘের সাধারণ সভায় (৩ মে) তারিখটিকে ‘ওয়ার্ল্ড প্রেস ফ্রিডম ডে’ অথবা বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবসের স্বীকৃতি দেওয়া হয়।

সাংবাদিকতার স্বাধীনতা ও মুক্ত গণমাধ্যম প্রতিষ্ঠার মৌলিক নীতিমালা অনুসরণ, বিশ্বব্যাপী গণমাধ্যমের স্বাধীনতার মূল্যায়ন, স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ প্রতিহত করার শপথগ্রহণ এবং পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে ক্ষতিগ্রস্ত ও জীবনদানকারী সাংবাদিকদের স্মরণ ও তাঁদের স্মৃতির প্রতি সম্মান ও শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করা হয় দিবসটিতে।

বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হচ্ছে। আজ সোমবার বিকেল ৩টায় মানবাধিকার সংগঠন ‘নাগরিক’-এর আয়োজনে ‘কভিড অতিমারি, সংবাদপত্র ও মত প্রকাশের স্বাধীনতা’ শীর্ষক সেমিনারের আয়োজন করা হয়েছে। এতে আলোচনায় অংশ নেবেন ভুক্তভোগী সাংবাদিক, শিল্পী, শিক্ষক ও সংশ্লিষ্টরা।

দিবসটি উপলক্ষে জাতিসংঘের ঢাকা কার্যালয় থেকে গতকাল রবিবার (২ মে) মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেসের একটি বার্তা প্রচার করা হয়।

জাতিসংঘ মহাসচিব ‘উইন্ডহোক ঘোষণার ৩০ বছর’ শীর্ষক বাণীতে গণমাধ্যম বিষয়ে বলেন, করোনা মহামারির সময় আমরা বিশ্বব্যাপী যে চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করেছি- সেগুলো জীবন বাঁচাতে, শক্তিশালী, স্থিতিশীল সমাজ গঠনে নির্ভরযোগ্য, যাচাই করা এবং সর্বজনীন ভূমিকাকে চিহ্নিত করে’। তিনি বলেন, মহামারি এবং জলবায়ুর জরুরি অবস্থাসহ অন্যান্য সংকটময় সময়ে সাংবাদিক এবং গণমাধ্যমকর্মীরা ক্ষতিকর ভুল এবং মিথ্যাচারকে মোকাবেলাসহ আমাদের দ্রুত পরিবর্তিত ও প্রায়ই অপ্রতিরোধ্য তথ্যের দৃশ্যপট তুলে ধরতে সহায়তা করে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close