জাতীয়

বঙ্গবন্ধুর খুনি নূর চৌধুরীর অবস্থান জানতে বাধা নেই: কানাডার আদালতের রায়

বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার মৃত্যুদ-প্রাপ্ত আসামী নূর চৌধুরীর অবস্থান সংক্রান্ত তথ্যের বিধিনিষেধ তুলে নেয়ার আদেশ দিয়েছে কানাডার আদালত। এর ফলে নূর চৌধুরীকে ফেরাতে একধাপ অগগতি হলো বলে মনে করছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তবে সাবেক আইনমন্ত্রী ব্যারিস্টার শফিক আহমেদ বলছেন, আদেশে নুর চৌধুরী অবস্থান সংক্রান্ত তথ্য না থাকলে ফিরিয়ে আনার ক্ষেত্রে খুব একটা অগ্রগতি হবে না।
১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রে স্বাধীনতার স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যা করা হয়। কখ্যাত ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করে হত্যাকান্ডের বিচারের পথও রুদ্ধ করে ৭৫ পরবর্তী সরকার।
দীর্ঘ ২১ বছর পর ক্ষমতায় ফিরে ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ বাতিল করে শুরু হয় বঙ্গবন্ধু হত্যাকারির বিচার। মামলার চূড়ান্ত নিষ্পত্তি করে দন্ডিত পাঁচজনের ফাঁসি কার্যকর করা হয়।
কিন্তু মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত খন্দকার আবদুর রশিদ, এ এম রাশেদ চৌধুরী, শরিফুল হক ডালিম, এসএইচএমবি নূর চৌধুরী, আবদুল মাজেদ ও রিসালদার মোসলেম উদ্দিন খান বিদেশে পলাতক।
দন্ডপ্রাপ্ত আসামিদের দেশে ফেরানোর চেষ্টায় ইন্টারপোল থেকে রেড অ্যালার্ট জারি করা হলেও তাদের ফেরানো যায়নি।
তবে নুর চৌধুরীকে ফেরানোর প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে বাংলাদেশের আবেদনে সাড়া দিয়েছেন কানাডার আদালত। কানাডার ফেডারেল কোর্টের বিচারক জেমস ডব্লিউ ওরেইলি সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য দেশটির প্রশাসনকে এই নির্দেশ দেন। আর এর মাধ্যেম বঙ্গবন্ধুর আত্মস্বীকৃত খুনি নূর চৌধুরীকে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে এক ধাপ অগ্রগতি হয়েছে বলেই মনে করছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।
তবে তবে আদেশে নুর চৌধুরী অবস্থান সংক্রান্ত তথ্য না থাকলে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে খুব একটা অগ্রগতি হবে না বলে মনে করেন আইন বিশেষজ্ঞ ড. শফিক আহমেদ।
কানাডার আইনে মৃতুদন্ডপ্রাাপ্ত কাউকে প্রত্যর্পণে বাধা থাকায় দেশটির সরকার ‘জনস্বার্থ রক্ষা’র যুক্তি দিয়ে তথ্য প্রকাশ না করার সিদ্ধান্ত জানিয়েছিল। কিন্তু বাংলাদেশ সরকার এ নিয়ে মামলায় কানাডার ফেডারেল কোর্টে একটি মামলা করে। মামলায় শুনানি করে বিচারক মঙ্গলবার বাংলাদেশের পক্ষে রায় দেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker