আন্তর্জাতিক

মোশাররফের মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল

পাকিস্তানের প্রয়াত প্রেসিডেন্ট জেনারেল (অব.) পারভেজ মোশাররফের বিরুদ্ধে করা রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় ২০১৯ সালে দেয়া বিশেষ আদালতের মৃত্যুদণ্ডাদেশ বহাল রেখেছে পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট। তার মৃত্যুর এক বছর পর এ রায় এল।
বৃহস্পতিবার (১১ জানুয়ারি) এক প্রতিবেদনে এ খবর জানায় পাকিস্তানি গণমাধ্যম জিও নিউজ।
প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০০৭ সালে অবৈধভাবে পাকিস্তানের সংবিধান স্থগিত করা এবং দেশে জরুরি অবস্থা জারি করার জন্য একটি বিশেষ আদালত মোশাররফকে দোষী সাব্যস্ত করে এবং ২০১৯ সালে তাকে মৃত্যুদণ্ড দেয়।
সাবেক এই প্রেসিডেন্ট গত বছরের ৫ ফেব্রুয়ারি দুবাইয়ের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।
৭৯ বছর বয়সী এই সাবেক এই প্রেসিডেন্ট দুবাইতে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন। পাকিস্তানে সাজা এড়াতে ২০১৬ সাল থেকে তিনি স্বেচ্ছায় নির্বাসনে দুবাইতে বসবাস করছিলেন।
১৯৯৮ সালে পাকিস্তানের সেনাপ্রধান হওয়ার পরের বছর অভ্যুত্থানের মাধ্যমে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে উৎখাত করে ক্ষমতা দখল করেন জেনারেল পারভেজ মোশররফ। পরে ২০০২ সালে গণভোটের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে দেশটির প্রেসিডেন্ট হন তিনি।
ক্ষমতায় থাকাকালীন দেশটির বিচার বিভাগের সঙ্গে দ্বন্দ্বে জড়িয়ে ২০০৭ সালের নভেম্বরে পাকিস্তানে জরুরি অবস্থা জারি করেন জেনারেল মোশাররফ। দেশজুড়ে আন্দোলনের জেরে ২০০৮ সালে ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য হন মোশাররফ।
২০২০ সালের ১৩ জানুয়ারি লাহোর হাইকোর্ট বিশেষ আদালতের রায়কে অসাংবিধানিক বলে রায় দিয়ে মামলার শুনানির আদেশ দেন। লাহোর হাইকোর্টের এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করেন পাকিস্তান বার কাউন্সিল ও জ্যেষ্ঠ আইনজীবীরা। অবশেষে গতকাল বুধবার সর্বোচ্চ আদালত এই মামলার মুলতবি রায় দেন।
তবে ২০২০ সালের ১৩ জানুয়ারি সেই রায়কে ‘অসাংবিধানিক’ আখ্যা দিয়ে বাতিল করে দেন লাহোর হাই কোর্ট (এলএইচসি)।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button