জাতীয়

নিপীড়িত বঞ্চিত মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে সরকার: স্পিকার

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, নিপীড়িত বঞ্চিত মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে সরকার। বলেন, শতভাগ বিদ্যুতায়ন এবং অবকাঠামোগত উন্নয়নের সুফল দেশের জনগণ ভোগ করছে এবং দেশের অর্থনীতিও আজ শক্ত ভিতের উপর দাঁড়িয়ে আছে। বিশ্বে বাংলাদেশ আজ অনন্য উচ্চতায় অধিষ্ঠিত।

আজ সোমবার নিজ নির্বাচনী এলাকা ২৪ রংপুর-৬ এর অন্তর্গত কাবিলপুর ইউনিয়নস্থ লালদিঘী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে উপকারভোগীদের মধ্যে বাইসাইকেল, সেলাই মেশিন, হুইল চেয়ার ও স্প্রে মেশিন বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হয়ে একথা বলেন তিনি।
এ সময় স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে স্পিকারকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেয়া হয়।

অনুষ্ঠানে পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পীরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র এ এস এম তাজিমুল ইসলাম শামীমের সঞ্চালনায় উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যাপক নুরুল আমিন রাজা সভাপতিত্ব করেন। উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও ১৫নং কাবিলপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম রবি, কাবিলপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি রফিকুল ইসলাম বকুল, কাবিলপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম লাজু বক্তব্য প্রদান করেন।

ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শুধুমাত্র শহরকেন্দ্রিক উন্নয়নে বিশ্বাসী নন। প্রধানমন্ত্রী এমনভাবে উন্নয়ন পরিকল্পনা সাজিয়েছেন যেন গ্রামে বসেই শহরের সব নাগরিক সুবিধা পাওয়া যায়। তাঁর কৌশল ও দক্ষতাবলেই আমরা স্বল্পোন্নত দেশের কাতার থেকে উন্নয়নশীল দেশের পথে অগ্রসর হচ্ছি।’

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সুদীর্ঘ ২৩ বছর রাজনৈতিক আন্দোলন-সংগ্রামের মধ্য দিয়ে নিজের চাওয়া পাওয়াকে তুচ্ছ করে বাঙালির অধিকার ও দাবী আদায়ে ব্রত থেকেছেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর মতো মহান নেতার কারণেই আমরা পেয়েছি স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ, লাল সবুজের বিজয় পতাকা এবং বিশ্বের শ্রেষ্ঠতম সংবিধান। এসময় তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক ৪ঠা নভেম্বরকে জাতীয় সংবিধান দিবস হিসেবে ঘোষণাকে এক মাইলফলক অভিহিত করেন।
নিজ নির্বাচনী এলাকার উন্নয়ন সম্পর্কে তিনি বলেন, স্থানীয় মা-বোনদের জন্য ইউনিয়ন মহিলা প্রশিক্ষণ কেন্দ্র করা হচ্ছে। প্রতিটি ইউনিয়নে জাতির পিতার মুর‌্যাল এবং শহীদ মিনার স্থাপন করা হচ্ছে এবং প্রয়োজনে আরও উন্নয়নমূলক প্রকল্প গ্রহণ করা হবে। এসময় তিনি শিশু কিশোরদের ঘরের মধ্যে আবদ্ধ না থেকে খেলাধুলাসহ বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে যুক্ত হবার আহ্বান জানান।

স্পিকার বলেন, বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলার মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করতে কাজ করে যাচ্ছেন। তাঁর নেতৃত্বগুণে সমগ্র বাংলাদেশে যেমন উন্নয়ন হয়েছে, পীরগঞ্জেও একই ধারাবাহিকতায় উন্নয়ন হচ্ছে। সারা দেশে সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, স্বামী পরিত্যাক্তা ভাতা, মাতৃত্বকালীন ভাতাকে শতভাগ উন্মুক্ত করা হয়েছে। স্পিকার সকল উন্নয়ন কর্মকান্ডে বর্তমান সরকারের সাথে থাকার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানান।

এ সময় স্পিকার ১৫নং কাবিলপুর ইউনিয়নের উপকারভোগীদের মাঝে ১১টি সেলাইমেশিন, ১০ টি স্প্রে মেশিন, ১০টি হুইলচেয়ার এবং ৫০টি বাইসাইকেল বিতরণ করেন।

এরপর তিনি পীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও এলাকাবাসীর সাথে মতবিনিময় করেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker