জাতীয়

আগামী নির্বাচনে বিশৃঙ্খলাকারীদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ সিইসির

‘আগামী নির্বাচনগুলোতে সহিংসতা রোধে বিশৃঙ্খলাকারী এলাকার মাস্তানদের আগাম গ্রেপ্তার করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে নির্দেশনা দিয়েছি বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা।

বুধবার (২৪ নভেম্বর) আগারগাঁও নির্বাচন ভবনে সংশ্লিষ্টদের নিয়ে আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিশেষ সভা শেষে এ মন্তব্য করেছন তিনি।

সিইসি বলেন, ‘পাড়া-মহল্লায় পাহারা দিয়ে সহিংসতা বন্ধ করা সম্ভব নয়। নির্বাচনে অংশগ্রহণ করা প্রার্থীদের পরিবেশ ভালো রাখতে সবাইকে সহযোগিতা করতে হবে।’

সিইসি বলেন, ‘অনেকে গ্রেপ্তার হয়েছে। অনেককে গ্রেপ্তারের তৎপরতা চলছে। আমরা আগামী নির্বাচনগুলোর সহিংসতা রোধে আপ্রাণ চেষ্টা করছি। মাস্তানদের আগাম গ্রেপ্তার করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে নির্দেশনা দিয়েছি। এজন্য গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ ও নজরদারি বাড়ানোর তাগিদ দেওয়া হয়েছে আজকের সভায়।’

তিনি বলেন, ‘সংসদ সদস্য ও মন্ত্রীরা আচরণবিধি অনুসরণ করেন। দু-চার জন মানছেন না বলে অভিযোগ এসেছে। তাদের চিঠি দেওয়া হয়েছে এলাকা ছাড়ার জন্য। প্রতিটি ঘটনা তদন্ত করা হচ্ছে। আচরণবিধি লঙ্ঘন করলে অতীতে মামলা করা হয়েছে, আগামীতেও প্রয়োজনে মামলা হবে।’

‘প্রত্যেকটি ঘটনা তদন্ত করা হচ্ছে। আচরণবিধি লংঘন করলে অতীতে মামলা করা হয়েছে। তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে, আগামীতেও প্রয়োজনে মামলা করা হবে। প্রথম দুই ধাপের ভোটে সহিংসতা নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়েছে’ বলেন সিইসি।

চলমান ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন ‘অংশগ্রহণমূলক ও সফল হয়েছে’ বলে দাবি করে সিইসি বলেন, ‘সামগ্রিক অর্থে নির্বাচন সফল হয়েছে। কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটেছে; দুর্ঘটনা ও হতাহত হয়েছে। যেগুলো কোনোভাবেই কাম্য নয়। তবুও নির্বাচনের মানদণ্ড যদি ভোট প্রদান হয়, তাহলে আমি বলবো দুই ধাপে নির্বাচনে গড়ে ৭৪ শতাংশ ভোট পড়েছে।

আগামী নির্বাচনগুলোতে গোলযোগ-সহিংসতা ঠেকাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী শক্ত অবস্থান থাকবে। আমরাও আপ্রাণ চেষ্টা চালাবো বলে জানান প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected