প্রবাসে

সৌ‌দিতে ধরপাকড়: ফেরত এসেছে আরো ২০০ বাংলাদেশী।

সৌদি পুলিশি ধরপাকড়ের মুখে প্রবাসী বাংলাদেশিরা দলে দলে ফেরত আসছে। শুক্রবার ২শ বাংলাদেশি ফেরত এসেছে। নিয়ে ফেরত আসাদের সংখ্যা চলতি বছরে দাঁড়ালো ১৬ হাজার ২শ জনে।

শনিবার (২৬ অক্টোবর) ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছে। সংস্থাটির কর্মকর্তারা বলছেন, শুক্রবার রাতে একসঙ্গে ২শ জন প্রবাসী বাংলাদেশী কর্মী ঢাকায় এসে পৌঁছেছে। হযরত শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে পৌঁছালে প্রবাসী কল্যাণ ডেস্কের সহযোগীতায় বিমান বন্দরে তাদের জরুরী খাবার পানিসহ বাড়ি পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করে ব্র্যাক মাইগ্রেশন প্রোগ্রাম।

জানা যায়, এবার ফেরত আসা কর্মী কুড়িগ্রামের আকমত আলী কাজের অনুমতি নিয়ে পাঁচ মাস আগে সৌদি আরব গিয়েছিলেন। তার আকামা’র ( কাজের অনুমতি) আরও দশ মাস থাকলেও তাকে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। গোপালগঞ্জের সম্রাট শেখ জানিয়েছেন, আরো আট মাসের আকামা থাকা সত্ত্বেও তাকে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। নামাজ পড়ে বের হওয়ার পর বিনা অভিযোগে পুলিশ গ্রেফতার করে তাকে পাঠিয়ে দেয় বাংলাদেশে। একই অভিযোগ নারায়নগঞ্জের সাইফুল ইসলাম, চট্টগ্রামের আবদুল্লাহরও। কারো ছয়মাস, কারো আটমাস আবার কারো বছর আকামা থাকা সত্ত্বেও পুলিশ বিনা অভিযোগে গ্রেফতার করে দেশে ফেরত পাঠিয়ে দিচ্ছে।

চলতি বছ‌র ১৬ হাজারের বে‌শি বাংলা‌দে‌শি‌কে সৌদি আরব থেকে এভাবে পাঠানো হলো। এর মধ্যে চলতি মাসেই ওয়েজ আর্নাস কল্যাণ বোর্ডের সহযোগিতায় ৮০৪ জন জনকে ব্র্যাক সহযোগিতা করলো। এর মধ্যে একদিনে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক কর্মী এলেন গতকাল।

ব্র্যাক অভিবাসন কর্মসূচির প্রধান শরিফুল হাসান ব‌লেন, ফেরত অাসা কর্মীরা যেসব বর্ণনা দি‌চ্ছেন সেগু‌লো মর্মা‌ন্তিক। সাধারণ ফ্রি ভিসার নামে গিয়ে এক নিয়োগকর্তার বদলে আরেক জায়গায় কাজ করতে গি‌য়ে ধরা পড়লে অ‌নেক লোক ফেরত অাস‌তো। কিন্তু এবার অনেকেই বলছেন, তাদের আকামা থাকার পরেও ফেরত পাঠানো হচ্ছে। বিশেষ করে যাওয়ার কয়েকমাসের মধ্যেই অনেককে ফিরতে হচ্ছে যারা খরচের টাকার কিছুই তুলতে পারেননি। রিক্রু‌টিং এজেন্সিগু‌লো‌কে এই দায় নিতে হবে। পাশাপাশি নতুন করে কেউ যেন গিয়ে এমন বিপদে না পড়ে সেটা নিশ্চিত করতে হবে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker