প্রবাসে

আফগানিস্থানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটগ্রহণ

সব শঙ্কা কাটিয়ে যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। নির্বাচন ঘিরে নেওয়া হয়েছে কড়া নিরাপত্তা। সশস্ত্র তালেবানদের হামলা থেকে ভোট কেন্দ্র ও ভোটারদের রক্ষায় দেশের ৩৪টি প্রদেশে মোতায়েন করা হয়েছে ৩ লাখ নিরাপত্তা কর্মী।
আফগানিস্তানে সর্বশেষ প্রেসিডেন্ট নির্বাচন হয়েছিল ২০১৪ সালে। ওই নির্বাচনে প্রধান দুই প্রতিদ্বন্দ্বী আশরাফ ঘানি ও আব্দুল্লাহ আব্দুল্লাহ’র কেউই পরিষ্কার বিজয় লাভ করতে পারেনি। দুজনই পরস্পরের বিরুদ্ধে ভোট জালিয়াতির অভিযোগ তুলতে থাকলে অচলাবস্থা তৈরি হয়। দুই মাস পর যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় আশরাফ ঘানি প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেন আর আব্দুল্লাহ আব্দুল্লাহ প্রধান নির্বাহীর পদ নেন।
বুধবার রাতে ২৮ দিনের নির্বাচনি প্রচারণা শেষ হয়। শনিবার দেশটির স্বাধীন নির্বাচন কমিশনের অধীনে ভোটগহণ শুরু হয়। দেশটির সংবিধান অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট হতে গেলে ৫০ শতাংশের বেশি ভোট প্রয়োজন। তালেবান নিয়ন্ত্রিত এলাকার চার শতাধিক ভোটকেন্দ্রে ভোট গ্রহণ বন্ধ থাকবে।
এবারের নির্বাচনে প্রার্থী ১৮। গণমাধ্যম বলছে, হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে বর্তমান প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি, গুলবুদ্দিন হেকমাতিয়ার আর আবদুল্লাহ আবদুল্লাহর মধ্যে। আফগানিস্তানে মার্কিন অভিযানের পর পেরিয়েছে ১৮ বছর। তালেবানদের সঙ্গে দফায় দফায় শান্তি আলোচনা ব্যর্থ হওয়ার পর দেশটিতেই প্রায় প্রতিদিনই চলছে বোমা হামলা।
মোট ভোটার ৯৭ লাখ, এর মধ্যে ৩৩ লাখ নারী। ১৯ অক্টোবর নির্বাচনের প্রাথমিক ফলাফল ঘোষণা করা হবে। সেখানে বিজয়ী ১৫ জন প্রার্থীকে নিয়ে পরবর্তী প্রক্রিয়া শুরু হবে। ৭ নভেম্বর চূড়ান্ত ফল ঘোষণা।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker