জাতীয়

অনিয়ম-দুর্নীতির কারণেই ডেঙ্গু প্রতিরোধে ব্যর্থ দুই সিটি: টিআইবি

ডেঙ্গু প্রতিরোধে মশা নিধন ওধুষ কেনাসহ প্রতিটি ধাপেই ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের ব্যাপক দুর্নীতি। শুধুমাত্র দক্ষিণ সিটিতেই এখাতে অপচয় হয়েছে ৬শ ৪৪ কোটি টাকা। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ-টিআইবির গবেষনায় উঠে আসে এসব তথ্য। সংস্থাটির পরিচালক ডক্টর ইফতেখারুজ্জামান এজন্য দায়িত্বজ্ঞানহীনতাকে দায়ি করে জড়িতদের জবাবদিহিতার আওতায় আনার দাবী জানিয়েছেন।
চলতি বছর ডেঙ্গুতে আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্যা আগের যেকোন সময়ের চেয়ে বেশি। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে ১৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে প্রায় ৮৩ হাজার। যারমধ্যে ঢাকায় ৫৪.৯ শতাংশ এবং ঢাকার বাইরে ৪৫.১ শতাংশ, যদিও বেসরকারী হিসেবে এ সংখ্যা অনেক বেশি।
রাজধানীতে এডিস মশা নিয়ন্ত্রনে নিয়ে গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করে টিআইবি। এতে উঠে আসে, এ বছর ডেঙ্গুর প্রকোপ বাড়বে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আগাম সতর্কতা আমলে নেয়নি ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন।
টিআইবি বলছে, ডেঙ্গুর প্রকৃত চিত্র আড়াল করা হয়। নিয়ন্ত্রণে সঠিক পরিকল্পনাও ছিল না।
এডিস নিধনে উপযুক্ত কীটনাশক নির্ধারন না করা, ক্রয় পরিকল্পনা, দরপত্র পদ্ধতিতে অনিয়ম, লোক দেখানো বর্জ্য পরিস্কার ও ফগিং করা, মশা নিধনে অনিয়ম দুর্ণীতি এবং দায়িত্বে অবহেলার কথা তুলে ধরা হয় সংবাদ সম্মেলনে।
পর্যবেক্ষনে টিআইবি বলছে, বিগত কয়েক বছরের ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাবকে গুরুত্ব না দেয়া এবং মশা নিয়ন্ত্রণে কাজে অংশীজনের সমন্বয়ের অভাবেই ভয়াবহ পরিস্থিতি হয়েছে বলও মন্তব্য করেন টিআইবির নির্বাহী পরিচালক।
দুই সিটি কর্পোরেশনেই পর্যাপ্ত অর্থ থাকা স্বত্তেও ডেঙ্গু মোকাবিলায় অনিয়ম হয়েছে। কীটনাশক এবং যন্ত্রপাতি ক্রয়সহ প্রতিটি ধাপেই হয়েছে ঘুষ লেনদেন হয়েছে বলেও টিআইবির গবেষনায় উঠে আসে।
আগামীতে ডেঙ্গু মোকাবিলায় সতর্ক থেকে সংশ্লিস্টদের সঠিক কর্মপরিকল্পনা তৈরি, নির্মনাধীন ভবনের বিষয়ে আইন সংস্কারসহ বিভিন্ন সুপারিশও করেছে টিআইবি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker