আন্তর্জাতিক

বরিস জনসনের সিদ্ধান্ত বেআইনি।

যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের পার্লামেন্ট স্থগিতের সিদ্ধান্তকে বেআইনী ঘোষণা করেছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট।
রায়ে বলা হয়, পার্লামেন্টকে দায়িত্ব পালন করতে না দেয়াটা ভুল। গণতন্ত্রের ওপর এর মারাত্মক প্রভাব পড়েছিলো বলে জানান কোর্ট প্রেসিডেন্ট লেডি হেল। গত ১০ সেপ্টেম্বর যুক্তরাজ্যের পার্লামেন্ট পরবর্তী পাঁচ সপ্তাহের জন্য মুলতবি ঘোষণা করা হয়। মূলত পার্লামেন্টের সদস্যদের কোনো বাধা ছাড়া বেক্সিট কার্যকর করার জন্য মুলতবির এ ঘোষণা দেন তিনি। এর পরপরই বিরোধী দলসহ বরিস জনসনের দলের সদস্যরাও এ সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানান।
আদালতের এই রায়ের পর প্রধানমন্ত্রীকে পদত্যাগের আহ্বান জানিয়েছেন একদল এমপি। যত দ্রুত সম্ভব পার্লামেন্ট অধিবেশন চেয়েছেন তারা।
প্রধান বিরোধী দল লেবার পার্টির নেতা জেরেমি করবিন বলেছেন, এই রায়ে জনসনের ‘গণতন্ত্রের প্রতি অবমাননা’ প্রকাশিত হয়েছে।
রায়ে সুপ্রিম কোর্ট বলেছে, আগামী ৩১ অক্টোবর ব্রেক্সিট কার্যকরের সময়সীমা সামনে রেখে পার্লামেন্টের দায়িত্ব পালন বন্ধ করাটা ভুল ছিল।
কোর্ট প্রেসিডেন্ট বলেন, বিচারপতিদের সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হল, পার্লামেন্ট স্থগিত হয়নি- এই সিদ্ধান্ত বাতিল এবং এর কোনো কার্যকারিতা নেই। পরবর্তীতে কী হবে সে সিদ্ধান্তের ভার হাউজ অব কমন্স এবং হাউজ অব লর্ডসের স্পিকারদের।
আদালতের রায়কে স্বাগত জানিয়ে হাউজ অব কমন্সের স্পিকার জন বেরকাউ বলেছেন, আর কোনো দেরি না করে পার্লামেন্ট বসবে। জরুরি ভিত্তিতে দলগুলোর নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করবেন তিনি।
ব্রেক্সিট প্রশ্নে এমপিদের একজোট করতে ব্যর্থ হয়ে থেরেসা মে ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়ালে জুলাইয়ের শেষ ভাগে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী হন তার দলের নেতা বরিস জনসন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker