জাতীয়

ছাত্রলীগ নিয়ে কথা হলেও সিদ্ধান্ত হয়নি: ওবায়দুল কাদের

ছাত্রলীগের কমিটি ভেঙ্গে দেয়ার বিষয়ে আলোচনা হলেও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়ল কাদের। তিনি বলেন, যে সব কর্মকাণ্ডে সাধারণ মানুষ অসন্তুষ্ঠ হয়, সেসব বিষয় সমর্থনযোগ্য নয়।
সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রীর সাথে বৈঠক করেন, মার্কিন রাষ্ট্রদূত রবাট মিলার। এরপরই সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন ওবায়দুল কাদের।
ছাত্রলীগের কর্মকাণ্ড নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ক্ষুব্ধ কিনা এ প্রশ্নে তিনি বলেন, কিছু কিছু ব্যাপারে তো থাকতেই পারে। যেমন- নির্বাচনে যারা বিদ্রোহী ছিল, আমাদের মন্ত্রী-এমপিদের মধ্যে, নেতাদের মধ্যে- এ সব ব্যাপারে তো ক্ষোভ প্রকাশ হয়। কাজেই ছাত্রলীগেরও বিচ্ছিন্ন-বিক্ষিপ্ত কিছু কিছু ব্যাপার আছে, সেগুলো নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কনসার্ন থাকতেই পারেন, এটা খুব স্বাভাবিক। কিন্তু এখানে কোনো স্পেসিফিক সিদ্ধান্তের বিষয়ে আমি জানি না, কারণ ওই ফোরামে কোনো সিদ্ধান্ত নিয়ে আলোচনা হয়নি।
ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে গণভবন থেকে চলে যেতে বলেছেন বলে খবর এসেছে, এ বিষয়ে তিনি বলেন,
আমি তাদেরকে চলে যেতে বলব কেন? প্রাইম মিনিস্টারের ওখানে দেখা করতে গেছে। বিভিন্ন জেলা থেকে নেতারা গেছে, ছাত্রলীগ গেছে। প্রাইম মিনিস্টারের বাড়িতে তারা গেছে আমি কীভাবে বলি তোমরা এখান থেকে চলে যাও। আসলে কিছু কিছু খবর হাওয়া থেকে পাওয়া হয়ে যায়, একটা হয় আর একটা আসে।
বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুল অভিযোগ করছেন খালেদা জিয়াকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে।
এ প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সম্পাদক বলেন, আমরা বলেছি লিগ্যাল ম্যাটার ও লিগ্যাল ব্যাটেল করেই সমাধান করে করতে হবে। তারা যদি আন্দোলন করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে পারেন সে ধরনের আন্দোলন করতে পারেন। তারা ৫০০ লোক নিয়ে একটি দেড় মিনিট আন্দোলন দেশব্যাপী করতে পারেননি। এখন তাদের নেতারা এক সুরে বলছেন আন্দোলন ছাড়া মুক্তির পথ নেই। তারা আন্দোলন করুক, আন্দোলন করছে না কেন? তাদের কে না করেছে?
ওবায়দুল কাদের বলেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এনজিওদের শর্ত ভঙ্গ করে কর্মকাণ্ড পরিচালনা এবং প্রত্যাবাসনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির বিষয়ে আলোচনা হয়েছ মার্কন রাষ্ট্রদূতের সাথে।
মানবতা রক্ষায় সীমান্ত উন্মুক্ত করা হয়েছিল, কিন্তু দোয়ামাহফিলের অনুমতি নিয়ে রোহিঙ্গাদের রাজনৈতিক সভা-সমাবেশ বাংলাদেশ মানবে না বলে মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে জানানো হয়েছে।
বরাবরের মতো মিয়ানমারের ওপর যুক্তরাষ্ট্র চাপ প্রয়োগ অব্যহত রাখবে বলে সেতুমন্ত্রীকে জানান রাষ্ট্রদূত।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker