অর্থ বাণিজ্য

ট্রাকে নিত্যপণ্য নিয়ে আসছে টিসিবি

শামীমা আক্তার

bdnews24

ঈদে দাম বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে, নিত্যপ্রয়োজনীয় এমন পণ্যের মূল্যে নিয়ন্ত্রণে রাখতে টিসিবির মাধ্যমে খোলা বাজারে বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

বুধবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য স্থিতিশীল রাখা এবং গবাদি পশু পরিবহন সংক্রান্ত বিষয়ে অংশীজনদের নিয়ে আয়োজিত সভায় বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব মফিজুল ইসলাম একথা জানান।

তিনি বলেন, “টিসিবি ট্রাক সেল করবে, যাতে ভোক্তা পর্যায়ে প্রাইসটা নিয়ন্ত্রণের মধ্যে থাকে। যেগুলো দাম বাড়ার সম্ভাবনা আছে, সবই বিক্রি করবে।”

তবে কবে নাগাদ এবং কোন কোন পণ্য টিসিবি খোলাবাজারে বিক্রি করবে, তা নির্দিষ্টভাবে জানাননি সচিব।

পাইকারি বিক্রেতাদের উদ্দেশে বাণিজ্য সচিব বলেন, “ঈদকে সামনে রেখে আপনারা লাভ একটু কম করবেন। দাম একটু কমায়ে দিবেন। উৎসবে মানুষ যেন কষ্ট না পায়।”

বৈঠকে এক পেঁয়াজ আমদানিকারক বলেন, ঢাকার আমদানিকারকদের হতে পেঁয়াজের বাজারের নিয়ন্ত্রণ নেই। নিয়ন্ত্রণ পুরোটাই ভারতের হাতে আর সীমান্তে যারা কাজ করে, তাদের হতে।

“প্রতিদিন যদি ১৫০ থেকে ২০০ পেঁয়াজের ট্রাক সোনা মসজিদ আর ভোমরা কাস্টমস দিয়ে প্রবেশ করতে দেওয়া হয়, তাহলে পেঁয়াজ নিয়ে ঈদের দিন পর্যন্ত একটুও মাথাব্যথা থাকবে না।”

এ বক্তব্যের প্রেক্ষিতে বাণিজ্য সচিব মফিজুল ইসলাম বলেন, ‘এ বিষয়ে তো একটা মিটিং করেছিলাম। এরপরও কি বেশি বেশি ট্রাক ঢুকতে পারছে না?“

তখন ব্যবসায়ীরা বলেন, আগে ৫০টি ট্রাক ঢুকতে পারত, এখন ৬০ থেকে ৭০টি ঢোকে। কিন্তু এখন দেড়শ থেকে ২০০ গাড়ি ঢুকতে পারলে সমস্যা হবে না। তখন পিঁয়াজের দাম হবে কেজিপ্রতি ২০ থেকে ২২ টাকা।

বৈঠকের এই পর্যায়ে পেঁয়াজ আমদানির ক্ষেত্রে কাস্টমস কার্যক্রম আরও এক ঘণ্টা বাড়ানো সংক্রান্ত চিঠি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে সময়মতো না দেওয়ার জন্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্মসচিব জিন্নাত রেহানাকে সভা থেকে বের করে দেন বাণিজ্য সচিব।

ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে বাণিজ্য সচিব বলেন, “একটা কথা বলি, পেঁয়াজের বাজারে খুব বেশি নিয়ন্ত্রণ মানুষের হাতে নেই, আল্লাহর হাতে। বুঝছেন তো ব্যাপারটি বেশিদিন রাখার সুযোগ নেই।”

বৈঠকের পর বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি সাংবাদিকদের বলেন, “আজকে থেকে ফলোআপ করা দরকার। চিঠি লেখার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন, তার ফলাফল কী, এটার যেন ফলোআপ থাকে।”

পেঁয়াজের দাম নিয়ে তিনি বলেন, “যদি এমনটাই বাড়তি থাকে, তাহলে ইমিডিয়েটলি তারা যেন অ্যাকশনে যান। দরকার পড়লে সরকার ভর্তুকি দেবে, কিন্তু সাধারণ মানুষ যেন সহনীয় মাত্রায় পায়। এটা মনিটর করবে এবং প্রয়োজন বোধে ব্যবস্থা নেবেন।”

ব্যবসায়ীদের উদ্দেশে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, “আপনারা আপনাদের অবস্থান থেকে চেষ্টা করবেন, যাতে জিনিসপত্রের দাম সামনে ঈদের পর্বে সহনীয় থাকে। এটা আপনাদের নৈতিক দায়িত্বও বটে।”

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker